পার্ক নির্মানের দাবিতে মানববন্ধন করেছে আমরা ‘নারায়ণগঞ্জবাসী’

0

নারায়ণগঞ্জ,বিজয় বার্তা ২৪

sss“মুক্ত বাতাস মুক্ত পরিবেশে বাঁচতে চাই, লেক চাই পার্ক চাই” এই স্লোগান নিয়ে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুননেছা মুজিব’ লেক ও পার্ক দ্রুত বাস্তবায়নের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন আমরা নারায়নগঞ্জবাসী সংগঠন।

বুধবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ দেওভোগ নির্মাণাধীন লেকের সামনে এই মানববন্ধন করা হয়।

সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি নূর উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘রেলের এ পতিত জায়গায় লেক ও পার্ক নির্মাণের দাবীতে নারায়ণগঞ্জের সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে বিগত ১৯৯২, ১৯৯৭, ২০০৭ ও ২০০৮ সালে নারায়ণগঞ্জ জেলা উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে  আমি সহ মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক মুক্তিযোদ্ধা খাজা মহিউদ্দিন, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন মাহমুদ, প্যানেল চেয়ারম্যান মুরাদ মিয়া, অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, মো. নাসির উদ্দিন মন্টু, আমিনুল ইসলাম সেক্রেটারী, দেলোয়ার হোসেন চুনু, মুক্তিযোদ্ধা মোহর আলী চৌধুরী, আব্দুল গফুর প্রমুখের নেতৃত্বে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হয়েছিল। বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নারায়ণগঞ্জবাসীর আকাঙ্খার প্রতি লক্ষ্য রেখে জিমখানায় লেক ও পার্ক বাস্তবে রূপ দিতে যাচ্ছে। আমরা নারায়ণগঞ্জ সিটি করর্পোরেশনের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই, অভিনন্দন জানাই। কিন্তু লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে কাজটি অত্যন্ত ধীরগতিতে চলছে। বর্ষার পূর্বেই লেকের নিচের অংশের কাজটি দ্রুত গতিতে সম্পন্ন করার জন্য সিটি করপোরেশন মেয়রের প্রতি আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি। অন্যথায় সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক মুক্তিযোদ্ধা খাজা মহিউদ্দিন বলেন, ‘এ লেক ও পার্কের জন্য অনেক আন্দোলন ও সংগ্রাম করেছি। আজ জীবনের শেষ প্রান্তে এসে যখন দেখছি যে এ লেকটি বাস্তবে রূপ নিচ্ছে তখন মনটা আনন্দে ভরে ওঠে। আমি আশা করি নাসিক কর্তৃপক্ষ অতি দ্রুততার সাথে অবিলম্বে জনতার এ দাবিটি পূরণ করে নারায়ণগঞ্জের সৌন্দর্য বর্ধন করবেন। যে কোন প্রতিবন্ধকতা দূরীকরণে আমি সর্বাত্মক সহায়তা দিতে প্রস্তুত আছি। নারায়ণগঞ্জে কোন উন্নয়ন হয়নি। কেউ কেউ ভাগ্য পরিবর্তন করেছে। তাই কেউ এই পাক নিমাণে বাধা দিয়েন না। দুই তিন কেউ বিরোধিদের পক্সে যাবে তাতে কিছু আসে যায় না। আগুন লাগলে এই পাক থেকে পানি নিতে পারবে ফায়ার ও এলাকাবাসি।’

সাধারণ সম্পাদক  নাসির উদ্দিন মন্টু পার্ক ও লেক নিমার্ণের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, জিমখানায় বিশিষ্ট ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব আলাউদ্দিন খানের নামে স্টেডিয়াম হতে পারলে, বুক ভরে নি:শ্বাস নেয়ার জন্য লেক ও পার্ক কেন নির্মিত হবে না? প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ঘোষিত জলাধার সংরক্ষণের নীতিমালা ও ডিটেইল এরিয়া প্ল্যান মোতাবেক লেক নির্মিত হচ্ছে। তিনি এর দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান।

আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নূরউদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক রমজানুল রশিদ, আব্দুর রাশেদ রাশু, অ্যাডভোকেট এহসানুল করিম বাবুল, দেলোয়ার হোসেন চুন্নু, মুক্তিযোদ্ধা দেওয়ান আব্দুল কাদের, মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুল কাদির, বিশিষ্ট সমাজসেবক হাসান আহমেদ, আলমাছ আলী সরদার, দৈনিক ইয়াদ’র সম্পাদক তোফাজ্জাল হোসেন, নাসিক প্যানেল মেয়র শারমীন হাবিব বিন্নী, নারী কাউন্সিলর খোদেজা খানম নাসরিন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারায়ণগঞ্জ শহর শাখার সভাপতি শাহানারা বেগম, প্রচার সম্পাদক মাহমুদ হোসেন, সহ সম্পাদক মো. মনির হোসেন, দপ্তর সম্পাদক ইমামুল হাসান স্বপন, মোহাম্মদ হোসেন কাজল, মোস্তফা কামাল, মো. লোকমান আহমেদ, শফিকুল ইসলাম খান, সাজিম আহম্মদ, দুলাল মল্লিক, আজমত উল্লাহ খন্দকার, আব্দুর রহমান লিটন, দৈনিক ইয়াদের সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন, আহম্মদ আলী বেপারী, প্রনীক সভাপতি মো. সেলিম সিদ্দিক, মো. সেলিম হোসেন, আব্দুস সাত্তার ভুট্টো, দেওভোগ পোশাক প্রস্তুতকারী মালিক সমিতির সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক (লীলু) ভূইয়া সামসুল আলম, প্রনিক নেতা আল-আমিন, মো. জনি প্রমুখ।

Leave A Reply