অপহরনের ঘটনায় ফতুল্লায় গৃহ শিক্ষক আটক

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

ফতুল্লার সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে অপহরনের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা দায়ের করার পর ঐ ছাত্রীর গৃহ শিক্ষক আল-আমিন (৩২) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আল আমিন কাশিপুর খিলমার্কেট এলাকার বাবুলের ছেলে। অপরদিকে আটককৃত গৃহ শিক্ষকের তথ্য মতে অপহৃত কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিকবার রাতে ফতুল্লার কাশিঁপুর খিলমার্কেট এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে অপহৃতকে উদ্ধারসহ অপহরনকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা সার্জেন্ট আবু তাহের বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলায় সার্জেন্ট আবু তাহের জানান, সে একজন পেশায় সেনাবাহিনীর সার্জেন্ট। তার ছোট মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌসী সুমাইয়া (১৬) ফতুল্লার সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর ছাত্রী। তার মেয়েকে প্রাইভেট পড়ানোর জন্য গৃহ শিক্ষক হিসেবে আল আমিনকে রাখা হয়। গৃহ শিক্ষক ছাত্রী সুমাইয়াকে পড়ার ফাঁকে ফাঁকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে। এতে সুমাইয়া রাজি না থাকায় সে নানা কৌশল অবলম্বন করে আসছে। এ বিষয়ে তার মেয়ে অভিভাবকদের অবহিত করা হলে গৃহ শিক্ষক আল আমিনকে মানা করে দেয়া হয়। এরপরও সে সুমাইয়াকে স্কুলে আসা যাওয়ার পথে নানাভাবে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসাসহ নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে আসতো। গত ৬ মে সুমাইয়া কাশিপুর খিল মার্কেট এলাকায় মোশাররফ হোসেন স্যারের কাছে প্রাইভেট পড়ে বাসায় আসার পথে আল আমিন ও তার সহযোগিরা জোড় ইচ্ছার বিরুদ্ধে সিএনজি যোগে তুলে নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে চলে যায়।  সিএনজিতে উঠানোমাত্র তার মেয়েকে অচেতন করে ফেলে। এক পর্যায়ে তার কিশোরী মেয়ের চিৎকারে অপহরনকারী আল আমিনসহ সহযোগীরা পালিয়ে যায়। বিষয়টি ঐ সময়ে ডিউটরত এক ট্রাফিক সদস্য সুমাইয়াকে উদ্ধার করে তার অভিভাবকদের সংবাদ দিলে তারা তার মেয়েকে নিয়ে আসে এবং এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ অপহরনকারী আল আমিনকে গ্রেপ্তার করে।

Leave A Reply