বন্দরে আক্তার ভূঁইয়াকে পিটিয়ে জখম

0
শেয়ার করুনShare on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedInPin on PinterestPrint this pageEmail this to someoneShare on Tumblr

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

বন্দরের মদনপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের পশ্চিম কেওঢালা ভূঁইয়াবাড়িতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আক্তার ভূঁইয়া নামক এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করা হয়েছে মর্মে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয় যে, পার্শ্ববর্তী মোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়ার ছেলে শাহাজালাল ভূঁইয়া রিপন (২৫), আজমেরী ভূঁইয়া বাপ্পী (১৮) ও মোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়ার স্ত্রী রিনা বেগম (৪০) এর সাথে পারিবারিক বিষয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলছে। সেই বিরোধের সূত্র ধরে বুধবার সন্ধ্যার পর বিবাদীরা ও আরও সাথে থাকা অজ্ঞাত ৪/৫ জন পরস্পর যোগসাজশে লাঠিসোটা, দা-বটি, লোহার রড সহ দেশীয় অস্ত্রে-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাদী আক্তার ভূঁইয়া বাড়িতে প্রবেশ করে এবং তাকে এলোপাথারীভাবে প্রহার করে তাকে শারীরিকভাবে মারাত্মক জখম করে। তার মধ্য থেকে ১নং বিবাদী শাহাজালাল ভূঁইয়া রিপন (২৫) বাদী আক্তারের মুখের থুতুনির নীচে হকিস্টিক দিয়ে সজোড়ে আঘাত করলে তার থুতুনি ফেটে মারাত্মক রক্তক্ষরণ হয়। আহত আক্তারের ডাকচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে বিবাদীরা গালিগালাজ করে এবং প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরবর্তীতে স্থানীয়রা মারাত্মকভাবে আহত অবস্থায় আক্তারকে উদ্ধার করে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরবর্তীতে নিকট আত্মীয়দের সহায়তায় আক্তার বাদী হয়ে বন্দর থানায় মোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়ার ছেলে শাহাজালাল ভূঁইয়া রিপন (২৫), আজমেরী ভূঁইয়া বাপ্পী (১৮) ও মোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়ার স্ত্রী রিনা বেগম (৪০) কে বিবাদী করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ভূক্তভোগী আক্তার গণমাধ্যমকে জানান,মোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়ার স্ত্রী রিনা বেগম (৪০) তার ২ ছেলেকে লেলিয়ে দিয়েছে আমার বিরুদ্ধে। যাতে তারা আমার ক্ষতি করে। আরও কয়েকবার তারা আমাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করেছে। বুধবার তারা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং আমার সন্তানদের অপহরণের চেষ্টা চালায়। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
এ ব্যাপারে বন্দর থানা ওসি আবুল কালামের আলাপ কালে তিনি জানান, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুনShare on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedInPin on PinterestPrint this pageEmail this to someoneShare on Tumblr

Leave A Reply