তৃনমূলের মতামত॥ সামসুল হাসান

0

তৃনমূলের মতামত॥ সামসুল হাসান
কার্যালয় থাকলে দলের কার্যক্রম বেগবান হয়

মন্তব্য কলাম,বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন। স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একমাত্র কর্ণধার। আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে ৫২’র ভাষা আন্দোলন,৬৬’র ছয় দফা,৬৯’র গণ-অভ্যত্থ্যান,৭৮’র নির্বাচন,৭১’র স্বাধীনতা যুদ্ধ সবই বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অবদান অনস্বীকার্য। ১৯৭১সালের ৭ই মার্চ ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে যা বর্তমানে সোহরাওয়ার্দ্দী উদ্যান নামে সুপরিচিত। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এই স্থানেই স্বাধীনতার ডাক দেন। শুরু হয় স্বাধীনতা যুদ্ধ। দীর্ঘ ৯মাস যুদ্ধের পর ১৯৭১সালের ১৬ই ডিসেম্বর দেশ স্বাধীন হয়। আমরা ফিরে পাই একটি স্বাধীন ভূখন্ড, সাবলীল মানচিত্র,একটি জাতীয় পতাকা। ৩০ লক্ষ শহীদ ও ৪ লক্ষ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে অর্জিত এই স্বাধীনতা। নতুন উদ্যমে শুরু বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের পথচলা। বঙ্গবন্ধু যখন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে দেশ গড়ে তোলার কাজে বিভোর ঠিক সেই মুহুর্তে একদল বিপথগামী সেনা অফিসারদের নীল নকশায় ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগষ্ট বঙ্গবন্ধু স্ব-পরিবারে নিহত হন। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের হাল ধরেন বর্তমান সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। তার সুচারু ভূমিকায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এগিয়ে চলেছে। তারই ধারাবাহিকতায় নারায়নগঞ্জ-৪ আসনের মাননীয় সাংসদ জননেতা এ কে এম শামীম ওসমানের নেতৃত্বে নারায়নগঞ্জ জেলা পর্যায়ে আওয়ামীলীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগ সুসংগঠিত। কার্যালয়বিহীন দলের কোন অস্তিত্ব থাকেনা। সর্বোপরি,আওয়ামীলীগ একটি অনেক বড় সংগঠন। এই সংগঠনে অভিজ্ঞ ও কাজের মানুষ প্রয়োজন। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হলে প্রত্যেকটা ওয়ার্ড ও থানায় আওয়ামীলীগের কার্যালয় গড়ে তুলতে হবে। কার্যালয় বিহীন নেতাকর্মী ঐক্যবদ্ধ হয় না। একটি সংগঠনের প্রান হচ্ছে কার্যালয়। আওয়ামীলীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগসহ সহযোগী সংগঠন শক্তিশালী হয় তখনই যখন তাদের কার্যালয় থাকবে। কার্যালয় থাকলে সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সাথে কথোপকথন হবে,মাসিক মিটিং হবে,সংগঠনের অগ্রগতি সম্পর্কে আলোচনা হবে,প্রতিটি মিছিল-মিটিংয়ে সম্পর্কে আলোচনা হবে,গনতন্ত্র চর্চার সঠিক প্রয়োগ হবে। কার্যালয় না থাকলে নেতা-কর্মীদের মাঝে দুরত্ব বাড়ে। পরিশেষে আমি বলতে চাই,বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কর্মী শক্তিশালী হলে নেতা শক্তিশালী হবে,আর নেতা শক্তিশালী হলে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ শক্তিশালী হবে।
——————লেখক সামসুল হাসান
সাবেক সভাপতি.বন্দর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ,বন্দর,নারায়ণগঞ্জ।

Leave A Reply