জিয়াউর রহমানের বাধার কারণেই ছয় বছর দেশের বাইরে থাকতে হয়েছিলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে

0
শেয়ার করুনShare on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0Print this pageEmail this to someoneShare on Tumblr0

বিজয় বার্তা২৪ ডটকমঃ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জিয়াউর রহমানের বাধার কারণেই ছয় বছর দেশের বাইরে থাকতে হয়েছিলো তাকে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর হাতে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।
এর আগে, বুধবার সকালে গণভবনে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর ৩৬তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জেনারেল জিয়া ও খন্দকার মোশতাক সরাসরি জড়িত ছিলো। দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র এখনও আছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, কোন ষড়যন্ত্রের পরোয়া না করেই জাতির পিতার অসমাপ্ত স্বপ্ন পূরণে কাজ করে যাবেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৩৬তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে শুভেচ্ছা জানাতে বুধবার সকাল থেকে গণভবনে ছিল নেতাকর্মীদের ভিড়। সে সময় দেশে ফিরে আসাটা তার জন্য কতটা কঠিন ছিলো উঠে আসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আবেগঘন বক্তৃতায়। ফিরে এসে দলের দায়িত্ব নেয়া তার জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ ছিলো বলেও জানান তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের কাছে আমি কৃতজ্ঞ যে এতবড় দায়িত্ব আমাকে তারা দিয়েছিলেন। সেদিন আমাকে আওয়ামী লীগের প্রেসিডেন্ট করেছিলেন বলেই মানুষের যে ঢল নেমেছিলো সে কারণেই তখন জিয়াউর রহমান আমাকে বাধা দিয়ে রাখতে পারেনি। নইলে আমি ফেরত আসতে পারতাম না। এমনকি ফিরে আসার পর আমাকে ধানমন্ডি ৩২ এ যেতে দেয়নি এবং মিলাদও পড়তে দেয়া হয়নি। আমাকে বলা হয় অন্য একটা বাড়ি আমাদের দেবে। আমি বলেছিলাম কোনো বাড়ির লোভে আমি আসিনি।’
পরে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ৩৫০ জন মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করেন শেখ হাসিনা। এসময় তিনি বলেন, তৎকালীন জেনারেল জিয়ার বাধা উপেক্ষা করে ছয় বছর পর দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যেই তিনি দেশে ফিরে এসেছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ছয় বছর আমরা দেশে আসতে পারিনি আজকের এই দিনে ফিরে এসেছিলাম। ছয়বছর রিফিউজি হিসেবে বিদেশে থাকতে হয়েছিলো। তখন জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় ছিলো তিনি আমাদের আসতে দেননি। আমার ফিরে আসার লক্ষ্যে একটাই ছিলো বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করবো। দেশের মানুষের উন্নয়ন করবো।’
২০১৮ সালে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের হাতে তাদের নিজস্ব মাতৃভাষায় লেখা বই তুলে দেয়া হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শেয়ার করুনShare on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0Print this pageEmail this to someoneShare on Tumblr0

Leave A Reply