জনগণের স্বার্থ নয়,দলীয় স্বার্থই সরকারের কাছে মুখ্য-জোনায়েদ সাকি

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

বর্তমান সরকারের শাসন ব্যবস্থা খুব সিলেক্টিভ। সরকার তার দলীয় স্বার্থের সাথে সম্পৃক্ত অপরাধের বিচার করছেন। জনগণের স্বার্থ এখানে মুখ্য নয়। যার ফলে আমরা দেখছি নারায়ণগঞ্জে ত্বকী হত্যাকান্ডের মত আলোচিত হত্যাকান্ডের বিচার সাড়ে ৫ বছরেও হয়না। গণসংহতি আন্দোলনের ১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সদস্য-কর্মী-শুভানুধ্যায়ী সন্মিলনে জোনায়েদ সাকি একথা বলেন।

শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫ টায় দলের নারায়ণগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে ১৬তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উপলক্ষ্যে সদস্য-কর্মী-শুভানুধ্যায়ী সন্মিলন অনুষ্ঠিত হয় । সন্মিলনে সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা সমন্বয়কারী তরিকুল সুজনএবং সভা পরিচালনা বরেন নির্বাহী সমন্বয়কারী অঞ্জন দাস।

সভায় জোনায়েদ সাকি আরো বলেন, ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে শাসনকে ব্যবহার করছে সরকার। জণগণের গনতান্ত্রিক অধিকারকে রুখতে শাসন ব্যাস্থাকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছেন তারা। যার নমুনা আমরা দেখেছি বাংলাদেশে ঘটে যাওয়া ছাত্রদের স্বতস্ফূর্ত আন্দোলনকে দমন করতে । আমরা দেখেছি ছাত্রদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে, শহিদুল আলমের মত আর্ন্তজাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ফটোগ্রাফারকেও কারাগারে বন্দি থাকতে হয়। এই নৈরাজ্যকে রুখতে জনগণকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে সমাধানের পথে হাটতে হবে। এই পথ হিসেবে আমরা গণসংহতি আন্দোলন গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংকট উত্তোরণে জাতীয় মুক্তির সনদের প্রস্তাবনা জনগণের সামনে তুলে ধরেছি। আমরা এই জাতীয় মক্তির সনদ নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক জোট এবং দলের সাথে আলোচনা করবো।

সন্ত্রাস র্নিমূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বি বলেন, ধারাবাহিকতায় গুনগত পরিবর্তন ঘটেছে। গণসংহতি আন্দোলন সেই পরিবর্তনের ধারায় গুরুত্বপূর্ন শক্তি হিসেবে অংগ্রহণ করেছে। প্রকৃত বিপ্রবী কখনো হতাশ হয়না। তারা তাদের ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনের দিকে অগ্রসর হয়। গণসংহতিও সামনের দিকে তাদের লক্ষ্য অর্জনে এগিয়ে যাবে এই অশাাবাদ ব্যক্ত করছি।

কর্মী-সদস্য-শুভানুধ্যায়ী সন্মিলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা রফিউর রাব্বি, কবি আরিফ বুলবুল,সমগীত সংস্কৃতি প্রাঙ্গণের কেন্দ্রীয় সভাপতি অমল আকাশ, ছড়াকার আহেমেদ বাবলু, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েল, গানের দল গায়েনের সংগঠক শাহিন মাহমুদসহ গণসংহতি আন্দোলনের জেলা ও থানার নেতৃবৃন্দ।

কর্মী-সদস্য-শুভানুধ্যায়ী সন্মিলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, গণসংহতি আন্দোলনের মহানগর থানার সদস্য সচিব পপি রানী সরকার, গণসংহতি আন্দোলনের ফতুল্লা থানার আহ্বায়ক মশিউর রহমান রিচার্ড, গণসংহতি আন্দোলনের সিদ্ধিরগঞ্জ থানার আহ্বায়ক জাহিদুল আলম আল জাহিদ, গণসংহতি আন্দোলনের বন্দর থানার যুগ্ম আহ্বায়ক এমদাদ হোসেন, নারী সংহতির নারায়ণগঞ্জ জেলার আহ্বায়ক নাজমা বেগম, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি শুভ দেব।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.