রুপগঞ্জ আওয়ামীলীগের প্রস্তুতি সভা জনস্রোতে পরিনত

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

আগামী ২১ জুলাই রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে দেয়া আওয়ামীলীগের গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন সফল করতে ১৯ জুলাই বৃহস্পতিবার রূপগঞ্জের পূর্বাচলে প্রস্তুতি সভার আয়োজন করে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ। ক্ষুদ্র অনুষ্টানটি বিভিন্ন আয়োজনের কারণে মহাসমাবেশে রূপ ধারন করে। উপজেলার ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন থেকে শুরু করে জেলার শীর্ষ নেতাদের উপস্থিতিতে জন¯্রােতে পরিণত হয়। রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রস্তুতি সভায় জনতার ঢল নামে। দিনব্যাপী আয়োজনের মধ্যে অর্ধলক্ষাধিক লোকের জন্য চট্টগ্রামের মেজবানী অনুকরনে আয়োজন করা হয় মধ্যাহ্ন ভোজের। আর ফোক স¤্রাজ্ঞী মমতাজ বেগম এমপিসহ দেশের শীর্ষ সঙ্গীত ও নৃত্য শিল্পীগন মাতিয়ে তোলেন রূপগঞ্জের গণমানুষকে।
জানা যায়, বিভিন্ন আন্তজার্তিক সম্মান ও পদক অর্জনের কারণে আগামী ২১ জুলাই রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে গণসংবর্ধণা দেয়ায় সিগ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ। উক্ত অনুষ্ঠান সফল করতে ১৯ জুলাই নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার পূর্বাচল উপশহরের রাউজক ভবন সংলগ্ন ময়দানে প্রস্তুতি সভার আয়োজন করে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ। উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম রফিকের উদ্যোগে প্রস্তুতি সভা ও গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠান সফল করতে পূর্ব থেকেই নেয়া হয় ব্যাপক প্রস্তুতি। নিমন্ত্রন করা হয় উপজেলা ও জেলা আওয়ামীলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের। গড়ে তোলা হয় ১৫ হাজার লোক ধারন সম্পন্ন সভামঞ্চ। ১০ হাজার লোকের একসাথে বসে খাবার ব্যবস্থাসহ আগত বিভিন্ন ধর্মাবলম্ভী ৫০ হাজার নেতাকর্মীদের জন্য পৃথকভাবে আয়োজন করা হয় চট্টগ্রামের মেজবানী অনুকরনে আয়োজন করা হয় মধ্যাহ্ন ভোজের। আর সন্ধ্যায় ফোক স¤্রাজ্ঞী মমতাজ বেগম এমপি, কন্ঠশিল্পী সালমা, কনা, এমরান, কাজী শুভ নৃত্য শিল্পী অপু বিশ্বাসসহ দেশ বরেন্য শিল্পীদের অংশগ্রহনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলে। সকাল থেকেই বিভিন্ন ওয়ার্ড ইউনিট থানা ও জেলা আওয়ামীলীগের লোকজন ব্যান্ডপার্টি, রঙ্গিন ব্যানার ফেন্টুন ও প্লেকার্ড নিয়ে খন্ড খন্ড মিছিলসহ হাজির হতে থাকে সভামঞ্চে। বেলা ১১ টায় কানায় কানায় পূর্ন হয়ে যায় পূর্বাচল ময়দান। প্রস্তুতি সভায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাজান ভূইয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন নারায়নগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই ভুঁইয়া। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক সেনা প্রধান ও সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অবঃ) কেএম সফিউল্লাহ (বীর উত্তম), আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম রফিক, হোসনে আরা বেগম বাবলী এমপি, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আবুল হাসনাত মোহাম্মদ শহিদ বাদল, এড. জামাল হোসেন প্রমুখ। বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান বাচ্চু, যুগ্ন সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন, দপ্তর সম্পাদক এম এ রাসেল, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ নেত্রী ডাঃ খালেদা আক্তার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি খন্দকার আবুল বাশার টুকু, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হাফিজুর রহমান ভূইয়া সজিব, উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক আব্দুল আজিজ, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আনোয়ার হোসেন, নারায়নগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, তারাব পৌরসভার সাবেক মেয়র আলহাজ্ব খান মাহবুবুর রহমান মাহবুব, আওয়ামীলীগ নেতা মেজর (অবঃ) মসিউর বাবুল, ব্যারিষ্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ, মুক্তিযুদ্ধকালীন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল জাব্বার খান পিনু, তারিকুল ইসলাম মোগল, আমজাদ হোসেন, রূপগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হারেজ, সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবু হোসেন ভূইয়া রানু, দাউদপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, আওয়ামীলীগের নেতা আফাজ খান, মসিউর রহমান তারেক, আলীমুদ্দিন ভূইয়া, এড. আব্দুল আউয়াল, যুবলীগ নেতা আব্দুল আউয়াল, হাজী সফিকুল ইসলাম সফিক, মনিরুজ্জামান ভূইয়া মনির, ছাত্রলীগ নেতা মাসুম চৌধুরী অপু সোয়েব আহমেদ সোহাগ, আশিকুল ইসলাম খোকন প্রমুখ।
সভায় বক্তারা স্থানীয় এমপি গাজী গোলাম দস্তগীরের দ্বারা আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা হামলাসহ বিভিন্ন জুলুম অত্যাচারের কথা তুলে ধরে আগামী দিনে রূপগঞ্জের সন্তানকেই রূপগঞ্জের এমপি প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে আহবান জানান। পাশাপাশি গণসংবর্ধনা সফল করতে বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন। রূপগঞ্জকে বহিরাগত এমপির হাত থেকে মুক্ত করতে সকল নেতাকর্মীদের প্রতিও আহবান জানান বক্তারা। বক্তব্য চলাকালীন সময়ে অনুষ্ঠানে আগত আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা এমপি গাজীকে প্রতিহত করার জন্য বার বার গর্জে ওঠেন। পরে একই মঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মাতোয়ারা হয়ে উঠে রূপগঞ্জের গণমানুষ। এ সময় সর্বস্তরের জনতার অংশগ্রহণ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানকে আরো সুন্দর করে তোলে।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.