শ্রমিকদের প্রতি অন্যায় করা হলে কোনো ভাবেই বরদাস্ত করা হবে না-সেলিম ওসমান

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

‘যে শ্রমিকদের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রয়েছে সেই শ্রমিকদের প্রতি অন্যায় অত্যাচার করা হলে তা কোনো ভাবেই বরদাস্ত করা হবে না’ বলে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন বিকেএমইএ’র সভাপতি ও সাংসদ সেলিম ওসমান।

একই সাথে তিনি শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে এ-ও বলেছেন, “গার্মেন্ট ফ্যাক্টরী দেশের সম্পদ, এই সম্পদ ভাঙচুর করে, শ্রমিক অসন্তোষের মাধ্যমে কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইলে সেটিও মেনে নেয়া হবে না। উভয়ের বিরুদ্ধেই বিকেএমইএ’র পক্ষ থেকে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

সোমবার (২৪ জুন) সকালে সাকুরা গার্মেন্ট শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি ও শ্রমিকদের উপর মালিক পক্ষের হামলার ঘটনার পর দুপুর ১২টার দিকে তিনি ফতুল্লা মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সাথে কথা বলেন।

এসময় সেলিম ওসমান শ্রমিকদের সমস্যাগুলো শুনেন এবং এর সুষ্ঠু বিচারের আশ^াস প্রদানসহ এ ঘটনার তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ^াস প্রদান করলে উত্তেজিত শ্রমিকেরা প্রশমিত হন। এসময় তিনি জানান, ‘বৃহস্পতিবারের মধ্যে খোদ তিনি নিজেই পুরো ঘটনার তদন্ত করে এ ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান দিবেন। ততদিন পর্যন্ত সাকুরা গার্মেন্ট ফ্যাক্টরী বন্ধ থাকবে এবং শনিবার যথারীতি গার্মেন্ট খোলা হবে। আর যে কদিন গার্মেন্ট বন্ধ থাকবে ওই কদিন শ্রমিকদের কোনো হাজিরা কাটা যাবে না।’

সেলিম ওসমান জানিয়েছেন, ‘মালিক পক্ষের দোষ হলে তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর যদি এসব ঘটনায় শ্রমিকদের দোষ থাকে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

তবে তিনি শ্রমিকদের উপর হামলা চালানোর ঘটনায় সাকুরার মালিককে কঠোর ভাষায় শাসিয়ে দেন। তিনি থানা উপস্থি সাকুরার মালিকের কাছে জানতে চান ‘ফ্যাক্টরীর ভেতরে হকস্টিক কি করে আসলো?’ এর জবাবে মালিক জানিয়েছেন ‘তিনি ফ্যাক্টরীতে ছিলেন না, কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছেন তা তিনি জানেন না।’

সাংসদ সেলিম ওসমান হকস্টিকধারীদের খুঁজে বের করে কঠোর শাস্তির নিশ্চয়তা প্রদান করেন শ্রমিকদের। এসময় আহত শ্রমিকদের সম্পুন্ন চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করার জন্য গার্মেন্ট মালিককে নির্দেশনা দেন।

প্রসঙ্গত, রোববার ফতুল্লার সাকুরা গার্মেন্টসহ কয়েকটি গার্মেন্টের কয়েক হাজার শ্রমিক মালিক পক্ষের অনিয়ম, নির্যাতনের প্রতিবাদসহ কয়েকটি দাবি নিয়ে দুইদফা বিক্ষোভসহ সড়ক অবরোধ করে। এদিন শ্রমিকেরা ৬টি গার্মেন্ট ফ্যাক্টরীর মালিকের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় পৃথক ৬টি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়।

এঘটনার পর দিন সোমবার সকালে সাকুরা গার্মেন্টে শ্রমিকেরা কাজে যোগ দিতে গেলে ৩৬জন শ্রমিক ছাটাইয়ের কথা শুনে ফ্যাক্টরী থেকে বের হয়ে আসার সময় মালিক পক্ষের লোকজন পিছন দিক থেকে শ্রমিকদের উপর হকস্টিক নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। এতে ৭ শ্রমিক আহত হয়। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা শিবু মার্কেট এলাকায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোড অবরোধ করে বিক্ষোভ করে।

পরে শ্রমিকদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দেয় পুলিশ এবং আহতদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। সেখানে বিকেএমইএ’র সভাপতি সেলিম ওসমান এসে শ্রমিকদের সাথে কথা বলেন এবং তদন্ত করে বৃহস্পতিবারের মধ্যে দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থার আশ^াস প্রদান করেন।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.