ফতুল্লায় জলাবদ্ধতায় রাস্তাঘাটের বেহাল দশা

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

ফতুল্লার লালপুর চৌধুরীবাড়ি ,পৌষারপুকুর পাড় এলাকায় বৃষ্টির পানি জমে রাস্তায় কৃতিম নদী সৃষ্টি হয়েছে। দেখার কেউ নাই । নারায়ণগঞ্জ চার আসনের এম,পি জলাবদ্ধতা নিরসনের আশ্বাস দিলেও জনগন আজও তা বাস্তবায়নের রূপ রেখা দেখেনি। এমন কি ফতুল্লার লালপুর তিন চেয়ারম্যানের বসত বাড়ি হলেও এই রাস্তার জলাবদ্ধতায় তাদের দ্বারাও কোন প্রকার সঠিক জলাবদ্ধতার সেবা পাচ্ছেনা সাধারন জনগন এমনটাই বলছে ফতুল্লার সচেতন মহল।
এলাকা সূত্রে জানাযায়, বসন্ত ঋতুর চৈত্র মাস শেষ হতে না হতেই গ্রীষ্ম ঋতুর বৈশাখ মাসের প্রথমেই ঝড়ছে কালবৈশাখী ঝড় ও মুষাল ধারায় বৃষ্টি। এই বৃষ্টির পানিতে লালপুর পৌষার পুকুর পাড় এলাকার রাস্তারঘাট ডুবে গেছে পানিতে। পানির সাথে মিশ্রিত হচ্ছে ড্রেনের ময়লা যুক্ত পঁচা পানি। এই পানি রাস্তার উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে। প্রতিনিয়ত স্কুল কলেজ মাদ্রাসা ছাত্রছাত্রী অভিভাবকরা এবং বিভিন্ন কলকারখানার শ্রমিকরা পায়ে হেঁটে তাদের গন্তব্য স্থানে যাচ্ছে। অনেকই এই পচাঁ পানিতে হেঁটে নানা প্রকার চর্ম রোগে আক্রান্ত হয়ে পরেছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকারী দলের পদ পদোবি প্রাপ্ত নেতারা ও তাদের পরিবারের সদস্যরা কখনই এই পানির মধ্যে হাঁটতেছে না। কারন হিসেবে জনগন দেখেন তারা তাদের এসি, গাড়ীতেই চলাফেরা করছেন। র্দূভোগ পোহাতে হচ্ছে সাধারন জনগনের। লালপুর ও পৌষার পুকুর পাড়ের অনেক বাড়ি ঘরেও পানি বন্দি আছে মানুষ। তারা নিয়তির দোষ ছাড়া কাউকে দোষি করছেন না। এই জলাবদ্ধতার মধ্যে কর্ম তাগিদে ঘর থেকে বের হতে হচ্ছে। লালপুর ,পৌষার পুকুরপাড় এলাকায় রিক্সা ভাড়াও দ্বিগুন । ফলে খেটে খাওয়া মানুষ পায়ে হেঁটে চলাফেরা করছে। আক্রান্ত হচ্ছে নানান সংক্রামক রোগে। ফতুল্লার টৌধুরী বাড়ি সড়ক হতে লালপুর পৌষারপুকুর পাড় মানিক ডাক্তারের হক ফার্মেসী পর্যন্ত রাস্তায় তাগারের পানির সাথে মিশে আছে বৃষ্টির পানি। সফর আলীর বাড়ি পাকিস্তানী খাদেও সড়ক, আলআমিন বাগ, পাইনিউয়র সড়ক,লালপুর খানকা থেকে বোল্ডার সেলিমদের বাড়ির সড়কেও পানি। ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এম.শওকত আলী চেয়ারম্যানের বাড়ির সামনের সড়কটিতেও জলাবদ্ধতা আছে। এই সড়কটিতে সর্ব সময়ই পানি জমে থাকছে। এ যেন তাদের চোখে পড়ছে না এমনটাই বলছে সাধারণ জনগন। চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন প্রধানের বাড়ি থেকে হালিমা চেীধুরী বাড়ি পর্যন্ত গলি সড়কে পানি ও ময়লা জমে আছে। স্থানীয় ব্যবসায়ী আজিজুল হক মুন্না নিজ তহফিল থেকে সবার চলা ফেরার জন্য বসÍা দিলেও জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে কিছুই পাচ্ছে না এলাকাবাসী। বৃষ্টি ছাড়াও চৌধুরী বাড়ি এলাকায় ড্রেনের পানি জমে রাস্তায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। নিয়মিত ভাবে লক্ষ না রাখায় ড্রেনেস ব্যবস্থা অকেজো হয়ে পড়েছে। বাংলাদেশের উন্নয়নের রূপকার ডিজিট্যাল দেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে চলছেন গণপ্রজা তন্ত্রী সরকারের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা । তার সফল কর্ম কান্ড কে প্রশ্ন বিদ্ধ হচ্ছে সামন্য কতিপয়ের গোড়ামী নেতা ও জনপ্রতিনিধিরদের জন্য । সুতরাং দেশরতœ মানষ কন্যার সরকারী ভাবে সরাসরি দৃষ্টি দিলে ফতুল্লা বাসীর উপকারে আসবেন বলে সচেতন মহল মনে করেন।

লালপুর পৌষার পুকুর পাড়ের মানুষরা যেন জলাবদ্ধতা থেকে বাঁচতে পারে সে দিকে নজর দাবী করছেন সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্র্তৃপক্ষের ।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.