আড়াইহাজারে কালাপাহাড়িয়ায় ডাকাতের উৎপাত্তে জনমনে আতংক

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

আড়াইহাজারে হঠ্যাৎ করে বাড়ছে চুরি, ডাকাতি ও রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা। এতে জনমনে আতংক দেখা দিয়েছে। উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা কালাপাহাড়িয়ায় ডাকাত আতংক বিরাজ করছেন।

গ্রামবাসী তাদের যানমাল নিরাপদ রাখতে প্রতিদিনই রাত জেগে পাহাড়া দিচ্ছেন। অভিযোগ রয়েছে, ঘুমন্ত কালাপাহাড়িয়া বাসীর ওপর প্রায় প্রতিরাতেই দৃস্কৃতিকারিরা হামলা করছে। লুট করে নিয়ে যাচ্ছে সর্বস্ব। এলাকায় একটি পুলিশ তদন্তকেন্দ্র থাকলেও সময় মত পুলিশের সাহায্য পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী।

এরই মধ্যে বেশ কয়েকজনকে আটক করে স্থানীয় পর্যায়ে বিচার করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক যুবক জানান, কালাপাহাড়িয়ায় কর্মসংস্থানের অভাব হয়ে গেছে। আগে অনেকেই ড্রেজারে কাজ করে জীর্বিকা নির্বাহ করতেন।

এখন অনেক ড্রেজার বন্ধ হয়ে আছে। এতে অনেকে বেকার হয়ে গেছেন। পেটের তাগিদে তারা চুরির মত অনৈকিত কাজ বেছে নিয়েছেন। উপজেলার বিভিন্ন বাজারে রাতে আধারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সর্বস্ব লুটে নিচ্ছে। হঠ্যাৎ করেই আইনশৃঙ্খলার অবনতি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চলতি মাসের প্রথম থেকে শুরু পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বেশ কিছু ব্যবাস প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনা ঘটেছে। লুট করে নিয়ে গেছে সর্বস্ব। এসব ঘটনায় পুলিশ কোনো পদক্ষেপই নেয়নি। রাত হলে কালাহাড়িয়াসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ডাকাত আতংক বিরাজ করছেন। গত কয়েক দিন আগে উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের বগাদী এলাকায় শিক্ষক ছগীর আহম্মেদের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

ডাকাতরা ওই বাড়ি থেকে প্রায় ৬ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। আড়াইহাজার থানার ওসি তদন্ত ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন। সর্বশেষ উপজেলার বাহ্মন্দী ইউনিয়নের বৈলারকান্দি বাজারে জসিমউদ্দিনের দোকানসহ আরও দুটি দোকানে চুরির ঘটনা ঘটেছে। এর আগে উপজেলার খাগকান্দা ইউনিয়নের নয়নাবাদ এলাকায় স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ একই রাতে আরও তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার তিলচন্দ্রী বাজারে কয়েকদিন আগে একই রাতে চারটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনা ঘটেছে।

এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বাড়ছে রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনাও। কয়েকদিন আগে উপজেলার হাইজাদী ইউনিয়নের নারান্দী এলাকায় সুমি আক্তার নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। পুুলিশের দাবী তিনি পারিবারিক কলহের জের ধরে নিজের শোবার ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

১২ ঘটনার ব্যবধানে উপজেলার বিশ্বন্দী ইউনিয়নের চৈতনকান্দা এলাকায় বিয়ের দেড় বছরের মাথায় এক গৃহবধূর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। স্থানীয়দের অভিযোগ তাকে তার স্বামী তারেক রহমান শ্বাসরোধ করে হত্যা করে গলায় দড়ি লাগিয়ে আড়ার সাথে ঝুঁলিয়ে পালিয়ে গেছেন।

সর্বশেষ ২৭ মার্চ উপজেলার ব্রাহ্মন্দী এলাকা থেকে এক টুকায়ের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। স্থানীয়দের দাবী তাকে কেউ শ্বাসরোধে হত্যা করে ঘটনা অন্যদিকে ধাপিত করার উদ্দেশ্যে গাছের সঙ্গে দড়ি দিয়ে ঝুঁলিয়ে রেখেছে।

আড়াইহাজার থানার ওসি এম এ হক বলেন, এ ঘটনায় তদন্ত করা হচ্ছে।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.