বন্দর থানায় বিএনপি’র ৭০ জনের বিরুদ্ধে মামলা।আটক ৪

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

ককটেল বিস্ফোরন ঘটিয়ে পুলিশের উপর হামলা ও অরাজগতা সৃষ্টির মামলায় সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলরসহ ৪ বিএনপি নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে বন্দর থানা পুলিশ। গত রোববার দুপুরে ও সোমবার সকালে বন্দর থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। ধৃতরা হলো নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান বাবুল (৪৮) বিএনপি নেতা কাবিলা (৪৭) বিএনপি কর্মী মান্নান (৩৫) ও মাছুম (২৮)। এ ব্যাপারে বন্দর থানার উপ-পরিদর্শক সালাহ উদ্দিন বাদী হয়ে ধৃত ৪ বিএনপি নেতাকর্মীসহ ২০ জনের নাম উল্লেখ্য করে ও ৭০/৮০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে বন্দর থানায় এ মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ৭(২)১৮ ধারাঃ- ১৯৭৪ সনের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(৩)/২৫)(ঘ) তৎসহ ১৯০৮ সালের বিস্ফোরক উপাদানবলি আইন (সংশোধনী/২) এর ৩/৬ দঃবিঃ। জানা গেছে, বন্দর থানার একরামপুর এলাকার মৃত হালিম সরদারের ছেলে বিএনপি কর্মী মান্নান ও কামতাল এলাকার আলী হোসেন মিয়ার ছেলে বিএনপি কর্মী মাছুম মিয়, নবীগঞ্জ বড়বাড়ী এলাকার সাবেক এমপি আবুল কালার এর ছেলে ছাত্রদল নেতা কাউছার, মদনপুর এলাকার বিএনপি নেতা মাজহারুল ইসলাম ভূইয়া হিরন, গকুলদাশেরবাগ এলাকার জামায়াত নেতা ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, সোনাকান্দা এলাকার বিএনপি নেতা নূর মোহাম্মদ পনেছ, নবীগঞ্জ কবিলেরমোড় এলাকার যুবদল নেতা নাজমুল রানা, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুলতান আহাম্মেদ, কবিলেরমোড় এলাকার সেচ্ছাসেবক দলের নেতা মোস্তাকুর রহমান, পুরান বন্দর মোল্লাবাড়ী এলাকার ছাত্রদল নেতা হুমায়ন কবীর মোল্লা, দক্ষিন লক্ষনখোলা এলাকার সেচ্ছাসেবকদলের নেতা সাইদুর রহমান, চৌরাপাড়া এলাকার বিএনপি নেতা নেছার উদ্দিন, মালিবাগ এলাকার মনির ওরফে কালা মনির, সোনাকান্দা এলাকার জামায়াত নেতা কাজী মামুন, সালেহনগর এলাকার ছাত্রদল নেতা সাখাওয়াত হোসেন পিংকি, দেওয়ানবাগ এলাকার বিএনপি নেতা বালু মনির একই এলাকার গ্যাস কাউছার ও কুড়িপাড়া এলাকার ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান বাবুল ও কলাগাছিয়া এলাকার মহানগর বিএনপি সহ-সভাপতি হাজী নূর উদ্দিনের নেতৃত্বে অজ্ঞাত ৩০/৪০ জন বিএনপি ও জামায়াত নেতাকর্মী গত ৪ ফেব্রুয়ারী রোববার ভোর ৫টায় ৪০ মিনিটে বন্দর উপজেলার নবীগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মদনগঞ্জ টু মদনপুর সড়কে রাস্তা গাছ ফেলে রেখে অরাজগতা সৃষ্টির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সংবাদ পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে রাস্তায় ফেলাকৃত গাছ সড়ানোর কথা বলে। ওই সময় বিএনপি ও জামায়াত নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরে এক পর্যায়ে বিএনপি নেতাকর্মীরা আরো উত্তেজিত হয়ে পুলিশকে লক্ষ করে ৪টি ককটেল নিক্ষেপ করে। এর মধ্যে ২টি ককটেল বিস্ফোরন হলে আরো ২টি ককটেল অবিস্ফোরিত হয়। এ ব্যাপারে বন্দর থানায় মামলা রুজু হলে পুলিশ ওই মামলায় ধৃত ১নং ও ২নং এবং ৬নং আসামীসহ ১৯নং আসামীকে ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে আদালতে প্রেরণ করেছে।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.