সিদ্ধিরগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সিদ্ধিরগঞ্জে বর্তমান ও সাবেক কাউন্সিলরের অনুগত দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছে। এসময় প্রতিপক্ষের বাড়ী ঘরে হামলা ভাংচুর করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৮ জুন) সন্ধ্যা ৭ টায় নাসিক ৬নং ওয়ার্ডের আদমজী সুমিলপাড়া রেললাইন এলাকায় আক্তার হোসেন ও হান্নান গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদের স্থানীয় ও নারায়ণগঞ্জ খানপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় বুধবার (১৯ জুন) বেলা ৩ টায় নাসিক ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও থানা যুবলীগের সভাপতি মতিউর রহমান মতির অনুগত সুমিলপাড়া আইলপাড়া এলাকার পানি আক্তার গ্রুপের ইউনুছ মিয়ার ছেলে শাহ আলম বাদী হয়ে বাত্তি মিজান, হান্নান, ফারুক হোসেন বাক্কু, শাহাদাৎ হোসেন, ফিরোজ, স্বপন, জসিম, আবু খান, শাহ আলম, ওসমান, স্বপন, রনি, হান্নান, রুবেল ও উবায়েদ উল্লাহ সহ ১৬ জনকে এজাহার নামীয় এবং অজ্ঞাত ১০/১৫ জনকে আসামী করে এবং নাসিক ৬নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও জেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মন্ডলের অনুগত হান্নান গ্রুপের পক্ষে সুমিলপাড়া এলাকার সুমন মিয়ার ছেলে জসিম বাদী হয়ে পানি আক্তার, ইকবাল, আরিফ, শামীম, বাবু, ইউসুফ, মিজান, রবিন, নুর হোসেন, আলমগীর, হাসান, ইব্রাহীম, বাচ্চু, স্বপন, সজীব, রাজীব, আমির হোসেন, চাঁন মিয়া, সোবহান, রবিউল, হৃদয়, রহমান, রিফাত, বিল্লালসহ ২৫ জনকে এজাহার নামীয় এবং অজ্ঞাত ২৫/৩০ জনকে আসামী করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় পাল্টা পাল্টি দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। দুই গ্রুপের প্রধানসহ ১১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ধৃতরা হলো, আক্তার হোসেন, মিজান, আবদুল হান্নান, স্বপন, ফিরোজ আহমেদ, শাহাদাত হোসেন, রবিন, বিল্লাল হোসেন, নূর হেসেন, মিজানুর ও শামীম।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, সিলিন্ডার গ্যাস ব্যবসাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পানি আক্তার গ্রুপের মো: হৃদয়কে মারধর করে হান্নান গ্রুপের লোকজন। পরে রাত ৮ টার দিকে আক্তার গ্রুপের ৪০/৪৫ জন দেশিয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে প্রতিপক্ষ হান্নান গ্রুপের উপর হামলা চালায়। তখন শুরু হয় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। এ ঘটনায় আহত হয় হৃদয়, ইব্রাহীম, রবিউল, আরিফ, রাসেল আহমেদ, জসিম, ইসমাইল, ইউসুফ, রাকিব, সাইদুল, শুভ ও মিজান। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে থানা পুলিশের তালিকাভূক্ত মাদক ব্যবসায়ী বাক্কুর নেতৃত্বে হান্নান গ্রুপের লোকজন প্রতিপক্ষ আক্তার হোসেনের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। তবে হান্নান গ্রুপের অভিযোগ গার্মেন্টস ছুটি হওয়ার পর রাস্তা দিয়ে নারী শ্রমিকরা হেটে যাওয়ার সময় আক্তার গ্রুপের হৃদয় সহ কয়েকজন ইভটিজিং করায় বাধা প্রদান করলে তারা হামলা চালিয়ে তাদেরকে মারধর করেছে।

খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর শাহীন শাহ্ পারভেজ এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে পরিস্থিত নিয়ন্ত্রন করেন। ঘটনার পর ৬নং ওয়ার্ড এলাকায় থম থম পরিস্থিতি বিরাজ করলেও পুলিশ কাউকে ছাড় না দিয়ে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করায় বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর শাহীন শাহ্ পারভেজ মারধরের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, দুই পক্ষই মামলা দায়ের করেছে। উভয় পক্ষের ১১ জনকে গ্রেফতার করে বুধবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। কেউ আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির বিঘœ ঘটালে কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

0 Shares
শেয়ার করুন.

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.