সিদ্ধিরগঞ্জে গৃহকর্মীর আত্মহত্যার চেষ্টা

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

সিদ্ধিরগঞ্জে নাছিমা আক্তার (২২) নামে এক গৃহকর্মী নারী ৪ তলার ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আতœহত্যার চেষ্টা করেছেন। গুরুতর আহত ও বিবস্ত্র অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেছেন গৃহকর্তা। গতকাল শনিবার বেলা ১২টার দিকে পূর্ব সানারপাড় ৪ নম্বর সড়কের ২১৫ নম্বর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষনিক ভাবে আতœহত্যার চেষ্টার কারন জানাতে পারেনি পুলিশ। তবে ঘটনার পেছনে অবস্যই বড় কোন কারন থাকতে পারে বলে দাবি করেছেন ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী পুলিশ কর্মকর্তা।
ঘটনাস্থলে পুলিশের উপ-পরিদর্শক নাসির উদ্দিন জানিয়েছেন, গৃহকর্তা ইকরামের ৪ জন স্ত্রী ও ১৫ জন সন্তান রয়েছে। সন্তানদের বয়স ৩ মাস থেকে ১৪ বছর পর্যন্ত । তার কোন নির্দিষ্ট পেশা নেই। ৪ তলা ওই বাড়ির ২য় তলার ফ্ল্যাটের ৪ টি কক্ষে স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে থাকে। ওই ফ্ল্যাটে ইকরামে বড় দুই স্ত্রী বিভিন্ন বয়সী নারীদের নিয়মিত তালিম দিতেন। সেখানে গত ১ বছর যাবত আতœহত্যার চেষ্টাকারী নাছিমাও থাকে। সে ঘরের বিভিন্ন কাজ করে। নাসিমা অবিবাহিতা ও সম্পর্কে ইকরামের খালাতো বোন। নাসিমার গ্রামের বাড়ি ভোলার লাল মোহন উপজেলার নাজিরাবাদ এলাকায়। ইকরামের বাড়িড়ও একই উপজেলার পঞ্চায়েত এলাকায়। ঘটনার দিন সকালে ভিকটিমকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায় ইকরাম। সেখান থেকে ফিরে আসার কিছু সময় পরই ওই ঘটনা ঘটে । মেয়েটির দুই পা ভেঙ্গে গেছে এবং বুকের বরাবর মারাতœক জখম হয়েছে। ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরো বলেন, মেয়েটি ছাদ থেকে নীচে ঝাঁপ দেওয়ার আগে পরিধানের সমস্ত কাপড় খুলে একটি পলিথিনে ভরে ছাদের উপরেই রেখে গেছে। ঘটনাটি ঠিক কি কারনে ঘটেছে তা তাৎক্ষনিক ভাবে বলা যাচ্ছে না বলেও তিনি জানান।
ইকরামের ৪র্থ স্ত্রী শাহীনা আক্তার জানান, ওই মেয়েটির সাথে জ্বীনের আশ্রয় ছিল। তবে কি কারনে তাকে ডাক্তারের কাছে নেওয়া হয়েছিল তাও বলতে পারেনি শাহীনা। এব্যাপারে কথা বলার জন্য ইকরামের মোবাইল ফোনে বার বার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

 

Leave A Reply