সরগরম থাকার কথা থাকলেও দলীয় কোন্দলে দিশেহারা না’গঞ্জ আ’লীগ

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

ঘনিয়ে আসছে একাদশ জাতীয় সাংসদ নির্বাচন। নারায়ণনগঞ্জ আওয়ামীলীগের ঘাটিঁ হিসেবে দলীয় নেতাকর্মীরা দাবি করলেও কেন্দ্রীয় কর্মসূচী পালনে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে দলটি। মূলত দলের ভিতরে ঘাপটি মেরে থাকা মীরজাফর নামক আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দের কারনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচী পালনে পিছিয়ে থাকার কারন বলে দলটির সিনিয়র নেতৃবৃন্দ স্বীকার করলেও সঠিক সময়ে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে বলেও দাবি করছেন তারা। তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন, একাদশ জাতীয় সাংসদ নির্বাচন হবে হাড্ডা হাড্ড্ িলড়াই। তাই প্রতিপক্ষের প্রতিদ্ধন্ধী প্রার্থীকে পরাজিত করতে হলে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগকে পূর্ব থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে, অণ্যথায় ভরাডুবির আশংকা করছেন তারা। সবকিছু মিলিয়ে বিশ্লেষকরা মনে করেন, একাদশ নির্বাচনকে সামনে রেখে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ সরগরম হওয়ার কথা থাকলেও দলীয় কোন্দলে অনেকটাই দিশেহারা হয়ে পড়েছে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের রাজনীতি। তাই ভরাডুবি থেকে মুক্তি পেতে হলে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের দলীয় কোন্দল নিরসন করতে হলে দ্রুত কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।
সূত্রে জানা যায়, সংবিধান অনুযায়ী ২০১৮ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৯ সালের জানুয়ারির মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার কথা। নির্বাচনের বেশ কিছু সময় বাকি থাকলেও এ নিয়ে ইতিমধ্যেই সরব হয়ে উঠেছে নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক অঙ্গন। এদিকে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মানাতো দূরের কথা উল্টো নীজ দলের মধ্যে কোন্দল প্রকাশ্যে নিয়ে এসেছেন। নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের কোন্দলের কারনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচী পালনে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছেন দলটি। নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সাংসদ একেএম শামীম ওসমান দেশের বাহিরে অবস্থান করাকালে দলীয় কোন্দলে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছিল। এছাড়া দেশের বাহির থেকে সাংসদ শামীম ওসমান দেশে আসার পর নারায়ণগঞ্জের দলীয় কোন্দল অনেকটাই কমে আসবে বলে তৃনমূল ধারনা করলেও গত কয়েকদিন ধরে সাংসদ ভ্রাতৃদ্ধয় একেএম সেলিম ওসমান এবং একেএম শামীম ওসমানকে নিয়ে মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড.খোকন সাহা এবং সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদা মালার অশ্লীল মন্তব্যের কথোপকথনের অডিও রেকর্ড ফাঁস হওয়ার পর থেকে দলীয় কোন্দল নিরসন হবে তৃনমূল্যের এমন ভাবনা অনেকটাই ক্ষীন হয়ে উঠেছে। অডিও রেকর্ড প্রকাশ পাওয়ার পর থেকেই মহানগর আওয়ামীলীগের এই দুই নেতার বহিষ্কারের দাবি উঠেছে তৃনমূল আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে। তবে গত কয়েকদিনের দ্ধন্ধে দ্ধিধাবিভক্তিতে ভোগছে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের তৃনমূল নেতৃবৃন্দ। দলীয় কোন্দলের কারনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচী পালন করতে পারছে না দলটি। অপরদিকে আওয়ামীলীগের আভ্যন্তরীন দ্ধন্ধ নিরসনের লক্ষ্যে দলীয় সিনিয়র নেতৃবৃন্দকেও হস্তক্ষেপ করতে দেখা যাচ্ছে না। দ্রুত সময়ের মধ্যে আওয়ামীলীগের অন্তকোন্দল নিরসন করা সম্ভব না হলে আগামি আগামি সাংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের ঘাটিঁ হিসেবে পরিচিত নারায়ণগঞ্জের আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থীর ভরাডুবির শংকা প্রকাশ করছেন তৃনমূল আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তাই নারায়ণগঞ্জের আওয়ামীলীগের তৃনমূল নেতৃবৃন্দ দলীয় কোন্দল নিরসনে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের জরুরী ভিত্তিতে হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে জানতে চাওয়ার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আঃহাই বলেন, নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে দক্ষ রাজনৈতিক ব্যাক্তির অভাব নেই। আর দলীয় কোন্দল মিডিয়ার সৃষ্টি বলে তিনি দাবি করেন। আর প্রকাশ পাওয়া অডিও রেকর্ডের বিষয়ে কোন ধরনের মন্তব্য করতে না চাইলেও অচিরেই মিডিয়ার সৃষ্ট দলীয় কোন্দল দ্রুত নিরসন করা হবে বলে তিনি আশ^স্থ করেন।
তবে এ ব্যাপারে মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা বলেন, আমরা যা করছি এটা দলীয় কোন্দল বুঝায় না’ এটা হচ্ছে রাজনৈতিক খেলা। কেননা, রাজনীতিতে শেষ কথা বলতে কিছু নেই। আমরা বর্তমানে যে পরিস্থিতিতে আছি এবং যে সকল সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হচ্ছে রাজনীতির স্বার্থে করা হচ্ছে। আর অডিও রেকর্ডের বিষয়ে খোকন সাহা বলেন, এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র’ আর অডিও রেকর্ডটি নকল বলে তিনি দাবি করেন। আর দলীয় কোন্দল নিরসনে আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে কোন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে খোকন সাহা বলেন, সময় এলে সবকিছু পরিষ্কার হয়ে যাবে।

Leave A Reply