রাজপথে নিষ্কিয় ভূমিকায় না’গঞ্জ বিএনপির অঙ্গসংগঠনগুলো

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

একে একে মুখ থুবড়ে পড়ছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির অঙ্গসংগঠনগুলো। রাজপথে আন্দোলন-সংগ্রাম কিংবা সাংগঠনিক কোনো কাজকর্ম নেই তাদের হাতে। নারায়ণগঞ্জ বিএনপির অধিকাংশ নেতাদের বেশির ভাগই ব্যস্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পাওয়ার লবিং-তদবিরে। তারা সবাই এমপি হতে চান। এজন্য সবকিছু বাদ দিয়ে এখন নির্বাচনে দলীয় টিকিট সংগ্রহের ‘লবিং-তদবিরে’ আদাজল খেয়ে লেগেছেন তারা। ফলে ভেস্তে যাচ্ছে সাংগঠনিক সব কর্মকা-। তবে সরকারের দমননীতি আর মামলা-হামলা, থানা পুলিশসহ প্রতিকূল রাজনৈতিক পরিস্থিতির দোহাই দিলেন কেউ কেউ। অন্যদিকে জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের কমিটি নেই টানা দুই দশক ধরে। ছাত্রদলের কমিটিও আহ্বায়ক কমিটির মধ্য দিয়ে অতিক্রম করেছে। মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির তাঁতী দল ও মৎস্যজীবী দলের অবস্থাও বেহাল। এ চারটি অঙ্গদলের দ্রুত কমিটি গঠন অপরিহার্য হয়ে উঠেছে বলে দাবি করেছেন নেতা-কর্মীরা। কিন্তু অন্তদ্বন্ধের কারণে কমিটিগুলো আটকে আছে। কবে হবে কেউ বলতে পারছেন না। এ ছাড়া অন্য কয়েকটি অঙ্গসংগঠনের কমিটি হলেও মাসের পর মাস এমনকি বছর পেরিয়ে গেলেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি হচ্ছে না। এর ফলে আটকে আছে তাদের ইউনিট কমিটিগুলোও। জেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ায় থানা ও উপজেলা পর্যায়ের কমিটিও ঢেলে সাজাতে পারছে না। যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দল, জাসাস ও শ্রমিক দল এই ত্রাহি অবস্থায় পড়েছে।

জানা গেছে, রাজপথে আন্দোলন না থাকায় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে বসে কর্মসূচি পালন এখন অনেকটা অভ্যাসে পরিণত হয়ে গেছে। এসি রুমে বসে প্রতিবাদ সভা এবং বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রেস বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে ‘চেহারা মোবারক’ প্রদর্শনই হচ্ছে এখন তাদের সর্বোচ্চ কর্মসূচি। পুলিশের অনুমতি না পেলে মাঝেমধ্যে তারা ঘরোয়াভাবেও এসব কর্মসূচি পালন করতে পারেন না।

যুবদল, ছাত্রদল চলে এখন বিবৃতির ওপর। শ্রমিক দলের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে কয়েক বছর। এ সময় কোনো একটি উল্লেখযোগ্য কর্মসূচি পালন দূরের কথা, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে এখন পর্যন্ত বিএনপি নেতারাই ঠিকমতো চিনে উঠতে পারেননি। এর চেয়ে বড় কথা, দল কিংবা জনস্বার্থে কোনো কর্মসূচি পালন না করতে পারলেও নিজেদের স্বার্থে এসব অঙ্গসংগঠনের নেতাদের বিক্ষোভসহ নানা কর্মসূচি ঘোষণা করতে দেরি হয় না। আর বিবৃতিতে নিন্দা-প্রতিবাদের ঝড় তোলাটা তো একেবারে মামুলি ব্যাপার।

জেলা ছাত্রদলের যুগ্ন আহ্বায়ক মশিউর রহমান রনি বলেন, ‘গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জ ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এখন আহ্বায়ক কমিটির পূনাঙ্গ রূপ দেওয়া জরুরী। আর কমিটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দলের এখতিয়ার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মৎসজীবি দলের এক নেতা বলেন, কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে সব সংগঠনেরই একটু গা ছাড়া ভাব থাকে। তার কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে কয়েক বছর হবে। তা ছাড়া মামলা-মোকদ্দমার পাশাপাশি শারীরিকভাবেও নেতারা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। ফলে সব মিলিয়ে সাংগঠনিক কাজে কিছুটা ভাটা পড়েছে। তবে সম্প্রতি মৎস্যজীবিদল আবারো পূর্ণোদ্যমে সাংগঠনিক কাজ শুরু করেছেন বলেও তার মতো একাধিক নেতা জানান।

Leave A Reply