বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হল শ্যামা পূজার অনুষ্ঠান

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে প্রতিমা বিসর্জণের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে চার দিনব্যাপী শ্রী শ্রী শ্যামাপূজার আনুষ্ঠানিকতা।

শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় শহরের ৩নং মাছ ঘাটে উৎসাহ-উদ্দীপনার সঙ্গে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন মন্দিরের কালী প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হয়। এছাড়াও এদিন ভ্রাতৃদ্বিতীয়া তিথিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে ভাইফোঁটা।

প্রত্যেক বোনেরা তাদের ভাইয়ের মঙ্গল কামনায় এদিন ভাইয়ের কপালে ফোঁটা দেন।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর পূজা উদযাপণ পরিষদের সভাপতি দিপক কুমার সাহার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক শিখন সরকার শিপনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে আয়োজিত শ্যামা পূজার বিসর্জণ মঞ্চে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের উপদেষ্টা ও জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি কমান্ডার গোপিনাথ দাস, জাতীয় পরিষদের সদস্য বাসুদেব চক্রবর্তী, হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্টের সম্মানিত ট্রাস্টি পরিতোষ সাহা, সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ কুমার দাশ, জেলা হিন্দু সংস্কার সমিতির সভাপতি কমলেশ সাহা, মহানগর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি লিটন চন্দ্র পাল, সাধারণ সম্পাদক নিমাই দে, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক সাংবাদিক উত্তম সাহা, কোষাধ্যক্ষ সুশীল দাস, প্রচার সম্পাদক তপন ঘোপ সাধু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক উত্তম সাহা, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক তপন ঘোষ, সদস্য কৃষ্ণ আচার্য্য, ফতুল্লা থানা হিন্দু সংস্কার সমিতির সভাপতি প্রদীপ মন্ডল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি রবিউল হোসেন, নাসিক ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শফিউদ্দিন প্রধান, নারী কাউন্সিলর শারমিন হাবীব বিন্নি, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি অরুণ কুমার দাস, সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রঞ্জিত মন্ডল, যুগ্ম সম্পাদক অরুণ দাস, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শিশির ঘোষ অমর, বন্দর থানা কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্যামল বিশ্বাস, সাংগঠনিক সম্পাদক রিপন দাস প্রমুখ।

বিসর্জণ মঞ্চের সভাপতি নারায়ণগঞ্জ মহানগর পূজা উদযাপণ পরিষদের সভাপতি দিপক কুমার সাহা তার বক্তব্যে বলেন, কালী পূজা বা দিপাবলী পালন করা হয় অমাবস্যার অন্ধকারে। এ সময় মঙ্গল প্রদিপ জেলে অন্ধকার দুর করে আলো জ¦ালানো হয়। এ থেকে সমাজ হতে সকল অন্ধকার দুর করে আলো প্রজ্জলনের শিক্ষা লাভ করা হয়। আমরা সকলে আজ এই শ্যামা পূজার বিসর্জণ মঞ্চে দাড়িয়ে সমাজের সকল অন্ধকার দুর করার শপথ গ্রহন করবো।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর পূজা উদযাপণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিখন সরকার শিপন বলেন, ‘ধর্ম যার যার উৎসব সবার’ এ অঙ্গীকারে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে নারায়ণগঞ্জের মানুষ উৎসব পালন করে থাকে। এবারেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। সদ্য সমাপ্ত শারদীয় দূর্গোৎসব অত্যান্ত সফলভাবে উদযাপণ করেছেন নারায়ণগঞ্জবাসী। নারায়ণগঞ্জের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান ও একেএম শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমানসহ সকল জন প্রতিনিধি, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী, ডিপিডিসি, ফায়ার সার্ভিস, বিআইডব্লিউটিএ সকলের সর্বাত্মক সহযোগিতায় উৎসবমূখর পরিবেশে শারদীয় দূর্গোৎসব সফলভাবে শেষ করতে পারায় আমরা সকলের প্রতি কৃতজ্ঞ ।

তিনি আরো বলেন, শারদীয় দূর্গোৎসবের সফল আয়োজনের ধারাবাহিকতায় এবার নারায়ণগঞ্জে সফল আয়োজন করা হয়েছে শ্যামা পূজা বা দীপাবলীর। গত মঙ্গলবার ৬ নভেম্বর শুরু হয়ে চারদিনব্যাপী ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা আর আনন্দ উল্লাসের মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জের সনাতন ধর্মাবলম্বীরা পালন করেছে শ্যামা পূজা। চারদিনের পূজা শেষে আজ ৯ নভেম্বর শুক্রবার শ্যামা পূজার দশমী অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বিসর্জণ প্রকৃয়া সুষ্ঠভাবে আয়োজনের জন্য ইতিমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই নারায়ণগঞ্জে শ্যামা বিসর্জণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। নিরপত্তার জন্য প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করে নিñিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থাও গ্রহন করা হয়েছে। সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টায় বরাবরের মতো এবারেও সফলভাবে শ্যামা পূজার বিসর্জণ সম্পন্ন করায় সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

প্রসঙ্গত, প্রতি বছর কার্তিক মাসের অমাবস্যার রাতে কালীপূজা বা শ্যামাপূজা অনুষ্ঠিত হয়। চলতি বছর গত মঙ্গলবার ৬ নভেম্বর মধ্যরাতে সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জের হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা অত্যন্ত জাঁক-জমকের সঙ্গে মা কালীর পূজা করেন। সে রাতে অশুভ শক্তিকে পরাজিত করে শুভ শক্তির বিজয়ের লক্ষ্যে কালী মায়ের আরাধনা করেন ভক্তরা। সুখ, শান্তি, জ্ঞান ও সম্পদের জন্য এ উৎসবের মাধ্যমে সৃষ্টিকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো হয়। মধ্যরাতে পূজার হোম, যজ্ঞ ও অঞ্জলি দেওয়া শেষে প্রসাদ বিতরণ করা হয়।

শেয়ার করুন.

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.