পানগাঁওয়ে আর্ন্তজাতিক কোস্টাল শিপিং সোনার তরী সার্ভিসের উদ্বোধন

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

রাজধানী ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে অবস্থিত পানগাঁও নদী বন্দরে আর্ন্তজাতিক কোস্টাল শিপিং সোনার তরী সার্ভিসের উদ্বোধন করা হয়েছে। শুক্রবার ১৭ ফেব্রুয়ার সকালে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতা থেকে ‘সোনার তরী’ নামের পন্যবাহী এ জাহাজটি পানগাঁও নদীবন্দরে এসে পন্য খালাস করেছে। পানগাঁও নদীবন্দরটির কার্যক্রম শুরু হওয়ায় ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ সহ পার্শ্ববতী জেলা গুলোতে ব্যবসা বাণিজ্যের আরো প্রসার ঘটবে বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফালে আহম্মেদ।

এর আগে শুক্রবার ১৭ ফেব্রুয়ারী দুপুর ১২টার দিকে পানগাঁও নদী বন্দরের উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংদ সদস্য ও বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা, বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ, বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএমএ) সভাপতি তপন চৌধুরী।

‘সোনার তরী’র আগমনের মধ্য দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের প্রথম কন্টেইনার সার্ভিস চালু হলো। সোনার তরী নৌ-কল্যাণ ১-এ ৬৫টি কনটেইনার রয়েছে।

উদ্বোধন শেষে পানগাঁও নদীবন্দরের কর্মচাঞ্চল্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে ৪জন মন্ত্রীর উপস্থিতিতে বাংলাদেশের সকল ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের সাথে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মত বিনিময় নীট গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বিকেএমএই এর পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করেন সংগঠনটির সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান।

মত বিনিময় সভায় বিকেএমইএ সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান উপস্থিত মন্ত্রীদের দৃষ্টি আকর্ষন করে বলেন, নদীবন্দরটির প্রাণ চাঞ্চল্য ও কর্মব্যস্ত করতে রপ্তানীকারক ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের সংগঠন গুলোর মধ্যে বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, ও বিটিএমইএ এর নেতৃবৃন্দ ও সংগঠন গুলোর সদস্যদের নিয়ে পানগাঁও নদীবন্দরে একটি সেমিনারের আয়োজন করে তাদেরকে বন্দরটি ব্যবহারের সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে অবহিত করা যেতে পারে। এতে করে খুব দ্রুত সুফল পাওয়া যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। সেই সাথে প্রাচ্যেরডান্ডি খ্যাত নারায়ণগঞ্জে প্রায় দুই শতাধিক ব্যবসায়ী সেক্টর রয়েছে। সেক্টর গুলোর সাথে সংশ্লিষ্টদের এই নদীবন্দরটি ব্যবহার করতে উদ্যোগী করা গেলে দ্রুতই বন্দরটি আরো সম্প্রসারন করার প্রয়োজন পড়বে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

সেলিম ওসমানের এমন মতামতের গুরুত্ব দিয়ে উপস্থিত মন্ত্রীরা খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, ও বিটিএমইএ সহ ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সদস্যদের সাথে পানগাঁও এলাকায় সেমিনার আয়োজন করার কথা বলেছেন।

Leave A Reply