নিহত শহিদ সুজলের ২৯ তম মৃত্যুদিবস উপলক্ষে শ্রমিক সমাবেশ

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

রি-রোলিং শ্রমিক আন্দোলনে নিহত শহিদ সুজলের ২৯ তম মৃত্যু দিবস উপলক্ষে রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট পাগলা-শ্যামপুর শিল্পাঞ্চল শাখার উদ্যোগে আজ বিকাল ৩ টায় পাগলা রসুলপুরে শ্রমিক সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। রি-রোলিং স্টিল মিলস্ শ্রমিক ফ্রন্ট শ্যামপুর শিল্পাঞ্চল শাখার সভাপতি আফজাল হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন রি-রোলিং স্টিল মিলস্ শ্রমিক ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সহ-সভাপতি এম, এ, মিল্টন, রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি জামাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এস,এম,কাদির, পাগলা শিল্পাঞ্চল শাখার সভাপতি মোস্তফা, দপ্তর সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, শ্যামপুর শিল্পাঞ্চল শাখার কার্যকরী সদস্য আলমগীর, শহিদ সুজলের সন্তান সুমন।
নেতৃবৃন্দ বলেন, ১৯৮৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর শ্যামপুরে অবস্থিত ডায়মন্ড স্টিল রি-রোলিং মিলের শ্রমিক সুজল শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করতে গিয়ে কারখানার আনসারের গুলিতে নিহত হয়। রি-রোলিং শ্রমিকদের কাছে আজও সুজলের আত্মত্যাগ অনুপ্রেরণা। রি-রোলিং কারখানাগুলোতে শ্রম আইনের বাস্তবায়ন নেই। শ্রম আইনের ৫ নং ধারায় শ্রমিকদের নিয়োগপত্র-পরিচয়পত্র দেয়ার বিধান থাকলেও কোন কারখানায় তা দেয়া হয় না। ফলে কথায় কথায় কোন রকম প্রাপ্য পাওনা ছাড়া শ্রমিক ছাটাই করলেও শ্রমিক আইনের আশ্রয় নিতে পারে না। মারাত্মক ঝুকির কাজ শ্রমিকরা কোন রকম সেফটি ছাড়া করে। শ্রমিকরা প্রায়শই ভয়াবহ দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটে। কিন্তু শ্রমিককে মালিকরা কোনরকম ক্ষতিপূরণ দেয় না। শ্রমিকদের নামমাত্র মজুরি দেয়া হয়। প্রতি ডিউটিতে মাত্র ৮০ থেকে ১২০ টাকা দেয়া হয়। শ্রমিকরা ট্রেড ইউনিয়ন সংগঠিত করলে নেমে আসে মারাত্মক নির্যাতন।
নেতৃবৃন্দ বলেন, পদ্মা রেল সেতু প্রকল্পের আওতায় পাগলা, শ্যামপুর, জুরাইন, পোস্তগোলায় অনেক ফ্যাক্টরি উচ্ছেদ করা হচ্ছে। এখানে মালিকদের ক্ষতিপূরণ দেয়া হলেও জানা গেছে শ্রমিকদের দেয়া হবে না। শ্রমিকদের আইনানুগ ক্ষতিপূরণ না দিলে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। নেতৃবৃন্দ শহিদ তাজুল থেকে শিক্ষা নিয়ে নিয়োগপত্র,পরিচয়পত্র, ক্ষতিপূরণ, ১৫০০০ টাকা ন্যূনতম মজুরি, ট্রেড ইউনিয়ন অধিকারের জন্য শক্তিশালী আন্দোলন এবং রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্টকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান।

Leave A Reply