চাঁদা না দেওয়ায় শ্রমিককে মারধর করলো শ্রমিক নেতা মানিক

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জে ট্রাক লোড আনলোড নিয়ে দুই শ্রমিক নেতা কামরুল হাসান মুন্না ও মাসুদুর রহমান মানিকের বিরুদ্ধে সাংসদ সেলিম ওসমানের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ করেছে শ্রমিকরা। নিরিহ ট্রাক শ্রমিকদের জিম্মি করে টোকেন বানিজ্যের নামে এই দুই শ্রমিক নেতা প্রতিদিন বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে জানায় শ্রমিকরা। আর এ নিয়ে প্রতিবাদ করলে মুন্না ও মানিক বাহিনীর নির্যাতনের শিকার হতে হয় বলেও জানান তারা। তেমনি নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে সোমবার (৯ অক্টোবর) রাজন ও শহিদ নামে দুই শ্রমিককে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
নিতাইগঞ্জ ট্রাক ও লোড আনলোড শ্রমিকরা জানায়, নারায়ণগঞ্জ জেলা ট্রাক, ট্যাঙ্ক লরী ও কাভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মাসুদুর রহমান মানিক ও নিতাইগঞ্জ লোড আনলোড শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি কামরুল হাসান মুন্না নিরিহ শ্রমিকদের জিম্মি করে রেখেছে। তারা টোকেন দেওয়ার নাম করে প্রতি ট্রাক থেকে ৫০০ থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করে। আর এ বিষয়ে কেউ প্রতিবাদ করলে তার উপর চালানো হয় নির্যাতন। সোমবার ঢাকা মেট্রো ট-১১-৩২১৫ নাম্বারের একটি টোকেন নিয়ে চট্র মেট্রো-ট-১১-৪২৮৭ নাম্বারের একটি ট্রাক মাল আনলোড করতে গেলে প্রতিবাদ জানায় শ্রমিকরা। আর এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শ্রমিক নেতা মাসুদুর রহমান মানিক রাজন ও শহিদ নামে দুই শ্রমিককে নির্মমভাবে মারধর করে। তখন নির্যাতিত শ্রমিকরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এর প্রতিবাদ জানালে মুন্না ও মানিক বাহিনী দিয়ে নিরিহ শ্রমিকদের ভয় দেখানো হয়।
এ বিষয়ে ক্ষুব্দ শ্রমিকরা জানায়, সাংসদ সেলিম ওসমান নিতাইগঞ্জের যানজট নিরসনের লক্ষ্যে যে টোকেন সিষ্টেম চালু করেছে, তার অপব্যবহার করে চাঁদাবাজির মহোৎসব শুরু করেছে মুন্না ও মানিক। তারা নিজেদের লোক দিয়ে প্রতি ট্রাক থেকে চাঁদা আদায় করছে, আবার এক ট্রাকের টোকেন অন্য ট্রাকের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে। ট্রাক নিতাইগঞ্জে প্রবেশ করতে দুইটি চেকপোষ্ট রয়েছে মেট্রো হলের সামনে ও মন্ডলপাড়া পুলের উপরে। এক ট্রাকের টোকেন নিয়ে অন্য ট্রাক চেকপোষ্ট পার হয়ে যায় কিভাবে!
এ সময় বিক্ষুব্দ শ্রমিকরা মুন্না ও মানিকের অপসারন দাবী করে এবং শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন দিয়ে শ্রমিকের ভোটে নতুন নেতৃত্ব আনার জন্য শ্লোগান দেয়।
এ বিষয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত শ্রমিক নেতা কামরুল হাসান মুন্না ও মাসুদুর রহমান মানিক জানান, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমান, সিটি মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভী, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনসহ সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় নিতাইগঞ্জের যানজট দুর করতে যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, একটি মহল সেটাকে নস্যাৎ করতে চক্রান্ত করছে। তারা টোকেন ছাড়া ট্রাক প্রবেশ করাচ্ছে, আর এতে বাঁধা দিলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটাচ্ছে।
তবে এ বিষয়ে ভিন্ন মত প্রকাশ করে ঘটনাস্থলে উপস্থিত নারায়ণগঞ্জ জেলা ট্রাক, ট্যাঙ্ক লরী ও কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শফিউদ্দিন প্রধান বলেন, শ্রমিক নেতারাই শ্রমিকদের মারছে। শ্রমিক কমিটির নেতারা চাঁদাবাজি করে, শ্রমিক নির্যাতন করে। শ্রমিকরা আর এই নেতৃত্ব মানে না, তারা নির্বাচন চায়।
ঘটনাস্থলে উপস্থিত নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর শাহীন শাহ পারভেজ এ বিসয়ে জানান, কিছু লোক টোকেন ছাড়া সড়কে গাড়ি রাখে। আমি দুইদিন আগেও একবার এসে নিষেধ করেছি এই রোডে গাড়ি না রাখতে। নিতাইগঞ্জ যানজটমুক্ত রাখতে যে কয়েকটি সড়কে গাড়ি রাখার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে, এই সড়কটি তার মধ্যে একটি। এ বিষয়ে কোন গ্রেফতার বা মামলা করার ঘটনা ঘটেনি।

Leave A Reply