কোন্দলে ভাটা না’গঞ্জ বিএনপির সদস্য সংগ্রহ অভিযান

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

কোন্দল নিরসনে হিমশিম খাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি। তৃণমূলকে চাঙ্গা, তহবিল গঠন ও ডাটাবেজ তৈরির জন্য সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করলেও দলীয় কোন্দলে তা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। বারবার দল পুনর্গঠনের উদ্যোগ নেয়া হলেও সর্বস্তরে কোন্দলের কারণে সেই প্রক্রিয়া এগোচ্ছে ধীরগতিতে। আর এর বিরূপ প্রভাব তৃণমূলের ওপর পড়ছে বলে জেলার তৃনমূল নেতাকর্মীরা মনে করেন। যার খেসারত দিতে হতে পারে আগামী দিনের আন্দোলন-সংগ্রাম ও জাতীয় নির্বাচনে।
সূত্রে জানা যায়, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া গত ১ জুলাই সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। কর্মসূচি সফল করতে নানামুখী পরিকল্পনাও গ্রহণ করা হয়। নারায়ণগঞ্জে লাখো সদস্য সংগ্রহের টার্গেট নেয়া হলেও এখন পর্যন্ত ৩০ শতাংশ কাজও সম্পন্ন করতে পারেনি দলটি। এরই মধ্যে দলের অনেক নেতা অন্তদ্বন্ধে জড়িয়ে পড়েছেন। জেলায় অভ্যন্তরীণ কোন্দল থেকে পদ-পদবির দ্বন্ধে সংঘর্ষ-সংঘাত ও রক্তারক্তিতে পন্ড হয়েছে সদস্য সংগ্রহ অভিযান।
সূত্রে জানা যায়, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান শাহজাহান এর সঙ্গে মিলনায়তনের ভেতরে প্রবেশ ও নেতাদের সাথে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে মহানগর ছাত্রদল নেতা আবুল কাউছার আশা ও কর্মী রফিকুল ইসলামের সাথে প্রথমে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। পরে অনুষ্ঠান শেষে কেন্দ্রীয় নেতারা বের হয়ে গেলে মিলনায়তনের বাইরে আবারও লাঠিসোটা নিয়ে এক পক্ষ আরেক পক্ষের উপর সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। সংঘর্ষ এক পর্যায়ে নগরীর প্রধান সড়কে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ছাত্র দলের ১০ কর্মী আহত হয়। ছাত্রদলের দুই পক্ষের দফায় দফায় সংঘর্ষের বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ টি এম কামাল বলেন, ‘কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে মিলনায়তনে প্রবেশ, ছবি তোলা এবং স্ব স্ব পন্থি নেতাদের পক্ষে কে কার চেয়ে বেশি শ্লোগান দিতে পারাকে কেন্দ্র করে মিলনায়তনের বাইরে বহিরগত নেতাকর্মীদের ধাক্কাধাক্কি ও সংষর্ঘ হয়েছে। তবে অনুষ্ঠান শান্তিপূর্ণ পরিবেশ সমাপ্ত হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।
তবে জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন এ ব্যাপারে বলেন, , দলকে ঐক্যবদ্ধ করার ক্ষেত্রে কিছু বাধা তো আছেই। তবে এটা অচিরেই দূর হবে। এ নিয়ে হতাশার কিছু নেই বলে মনে করেন নেতারা। তারা বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর কমিটি আংশিক গঠন করা হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি ওয়ার্ডে জুলে থাকা কমিটি গঠন করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে নারায়ণগঞ্জে দলীয় প্রভাব দেখাতে গিয়ে তৈরি হচ্ছে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা। নেতারা নিজেদের প্রভাব ধরে রাখতে মরিয়া হয়ে উঠছেন। পদ-পদবি বাগিয়ে নেয়ার আপ্রাণ চেষ্টার ফলেই সৃষ্টি হচ্ছে এমন বিরোধ।

 

Leave A Reply