আগামীকাল এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ

0

বিজয় বার্তা ২৪ ডট কম

চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে আগামীকাল বৃহস্পতিবার। শিক্ষার্থীরা বোর্ডের ওয়েবসাইটে ফলাফলে জিপিএ গ্রেড পয়েন্টের পাশাপাশি প্রাপ্ত নম্বরও জানতে পারবে।

বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বোর্ড চেয়ারম্যানদের সঙ্গে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেবেন।

আন্তঃবোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির আহ্বায়ক ও ঢাকা বোর্ড চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান বুধবার জানিয়ছেন, গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে সুনামগঞ্জ ও কক্সবাজার জেলাধীন একটি কলেজ, একটি মহিলা কলেজ, একটি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং একটি মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও অধ্যক্ষের সঙ্গে কথা বলবেন।

দুপুর ১টায় শিক্ষামন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ফলাফলের তথ্য উপাত্ত তুলে ধরবেন শিক্ষামন্ত্রী। এরপর শিক্ষার্থীরা ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোনের এসএমএস’র কিংবা স্ব স্ব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে ফল জানতে পারবে।

শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইট http://www.educationboardresults.gov.bd/ তে ফল জানতে পারবে শিক্ষার্থীরা।

ওয়েবসাইট ছাড়াও যেকোনো মোবাইল থেকে ফল জানা যাবে। এজন্য মোবাইলে ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে HSC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৬ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএস-এ ফল জানিয়ে দেয়া হবে।

একইভাবে মাদ্রাসা বোর্ডের আলিমের ফল জানতে Alm লিখে স্পেস দিয়ে Mad স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৬ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। একইভাবে এইচএসসি ভোকেশনালের ফল জানতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে Tec লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৬ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। উভয় ক্ষেত্রেই ফিরতি এসএমএসে ফল জানিয়ে দেয়া হবে।

গত কয়েক বছরের মতো এবারো বোর্ডগুলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ই-মেইলের মাধ্যমে তাদের ফল অবহিত করবে। কোনো ধরনের কাগজ বা লিখিত কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠানো হবে না। গতবছর এই পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ছিল ১০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৪জন। গড় পাসের হার ছিল ৬৯.৯০ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪২ হাজার ৮৯৪জন শিক্ষার্থী।

২০১৪ সালে পাসের হার ছিল ৭৮.৩৩ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ ছিল ৭০ হাজার ৬০২ জন। আগের বছরের তুলনায় গতবছর পাসের হার কমেছে ৮.৭৩ শতাংশ এবং জিপিএ কমেছে ২৭ হাজার ৭০৮ জন। ফল বিপর্যয়ের জন্য রাজনৈতিক পরিস্থিতিকে দায়ী করেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

এবছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল ১২ লাখ ১৮ হাজার ৬২৮ জন। এবার রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ছিল। তবে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর কারনে কয়েকদফায় পরীক্ষা পেছানো হয়েছিল। গত ৩ এপ্রিল পরীক্ষা শুরু হয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ হয় গত ২২ জুন।

Leave A Reply